প্রতিবেশী

বালিকা,

তোমার দারুকেশ্বর নদীর তীর ঘেঁষে এলোমেলো বৈঠা বেয়ে আমিইতো যাই
তুমি মাঝে মাঝে তাকাও আনমনে, আবার তাকাও না
বেসুরে গলায় গান গেয়ে আমিইতো বৈঠা বাই, তুমিকি শুনতে পাও না।
তোমায় ছুঁয়ে ছুঁয়ে অনেক দূরে হারিয়ে যাই, তুমি স্পর্শ টের পাও না ?

ভরা বর্ষায় যখন নদীর পানি উপচে পড়ে তখনও ছিলাম,
চৈত্রে যখন নদীর জল শুকিয়ে খাল তখনও আমি ছিলাম, তুমি খেয়াল করনি।

সেই ছোট্ট বেলায় তুমি যখন নদীর পাড়ে পুতুল খেলতে-
তখন তোমার আশেপাশে আমিই তো ঘুড়ি উড়াতাম।
তুমি দেখেছ ঘুড়ি, লাটাই হাতে আমাকে দেখনি।

নদীর তীর ঘেঁষে তোমার বসতি, আমার বসতি, আমাদের বসতি।
আমরা একে অপরের প্রতিবেশী ছিলাম, কেউ কাউকে খেয়াল করিনি।

//০৫০৭২০১৩

Few lines I follow in my professional and personal life both

1. Respect others if you want to be respected by others, sorry respect is not a one way game. Love could be !
2. Be polite , it doesn’t need to waste dollar to be polite.
3. Try to listen to others , it could be important what others are thinking, sometimes you must listen to rudeness.
4. Learn from others even if they know less than you.
5. After a certain interval like 6 months or one year, Update yourself , re-index your learning, finding, dreams, friends, loved ones and your knowledge.
6. You can not earn faith from your surroundings by just applying some terms and conditions. Sometimes you have to earn that or achieve that. Before expecting believe from others think yourself do you believe them or do you know how to believe others. Sorry believe is not a one way game.
7. Learn how to say sorry.

I try to follow the above lines every day in my personal and professional life, both. When every time I re-index my life timeline I found I have changed my life , my thinking are changed (I will say it’s improved).

I thought those few lines may help others to change their thinking and livelihood.

মানচুমাহারার দিন কাল

একঃ

‘#আবৃত্তিমেলা’ থেকে গতকাল(২১০৬২০১৩) দুইটা কবিতা আবৃত্তির সিডি কিনলাম। সকালে ল্যাপ্টপের ডিভিডি রমে ঢুকানোর পর দেখি সিডি পাচ্ছে না, আমি সিউর যে ডিভিডি রম ঠিক আছে। সাথে সাথে ধরে নিলাম আবৃত্তিমেলা আমাকে নষ্ট সিডি দিয়েছে। যেহেতু ল্যাপ্টপ রিস্টার্ট করা হয়নি(বেশির ভাগ সময় হাইবারনেট করি) তাই অনেক দিন পর রিস্টার্ট দিলাম। বুঝলাম এতক্ষন ডিভিডি রম পাচ্ছিলই না !

উপলব্ধি-২২০৬২০১৩-১ // মাঝে মাঝে সিস্টেম রিস্টার্ট দিতে হয়
উপলব্ধি-২২০৬২০১৩-২ // সামান্যতেই অন্যের উপর দোষ না চাপিয়ে ভালো করে চিন্তাভাবনা করা উচিৎ

বিঃ দ্রঃ #আসাদুজ্জামান নূরের কবিতা আবৃত্তি এই প্রথম শুনতেছি। এলব্যামের নাম ‘প্রেম ও বিদ্রোহ-১’ । ২য় যে এলব্যাম কিনেছি সেটার নাম ‘প্রেমে ও অপ্রেমে’ , আবৃত্তি করেছেন #মাহিদুলইসলাম।

প্রশ্নঃ বাজারে মাহিদুল ইসলামের কবিতার ক্যাসেটের এত ছড়াছড়ি কেন ? প্রতি তিনটা ক্যাসেট নাড়াচাড়া করলে দুইটা উনার।

দুইঃ
গতকাল(২১০৬২০১৩) কবি নির্মলেন্দু গুণের ৬৮ তম জন্ম জয়ন্তিতে কবিতা শ্রদ্ধা জানাতে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অনেক গুলো কবিতা আবৃত্তি শুনলাম। বেশ ভালো লাগল।
goon

ফোন দিয়ে দূর থেকে আরো তিনটা ছবি তুলেছিলাম

তিনঃ

১৮ জুন ফেসবুকে লিখেছিলাম //

এই অসময়ের ফাগুনে যদি পোড়াও মনের আগুনে
কিংবা শেষ বিকালের রোদ্দুরে যদি ফের মনের বন্দরে
ভাসমান এই শরীরে যদি আরো একটু ভর হয়ে জম গভীরে
আমি গুম হয়ে যাব ….//

চারঃ
১৮ জুন বাবা দিবসের চিন্তাভাবনা

//চিন্তাভাবনাঃ১৮০৬২০১৩-১

বাবা দিবস থেকে শিক্ষাঃ

“বাবাকে সবাই মাথার উপর ছাদ হিসাবে চিন্তা করে, বাবা হিসাবে না !”

//উপলব্ধি-১৮০৬২০১৩-২
“যে আপনার বাবাকে আপনার মাথার উপর ছাদ মনে হবে, সেদিন আপনি ধরে নিতে পারেন আপনি বড় হয়েছেন বা দায়িত্ব নিতে শিখেছেন”

পাঁচঃ
ফেসবুকে লিখেছিলাম দাউদ হায়দারের ‘কথা ছিল’ কবিতা অনুসরণে,

কবিতার নতুন নাম হতে পারেঃ “কথা না থাকলেও”

এক বিকেলে হয়না যাওয়া
আরেক বিকেল দিচ্ছে ধাওয়া
উষ্ণ বিকেল শীতল চাওয়া
উড়িয়ে নিবে ইচ্ছের হাওয়া ।।

— মানচুমাহারা

//চিন্তাভাবনা-১৭০৬২০১৩-১

ঠিকঠাক

যদি ভাংচুর হয়ে যায় চাঁদ
কিংবা কাটাকুটি হয়ে যায় রাত
শুধু স্বপ্নরা বেঁচে থাক ঠিকঠাক
ধরে রাতজাগা পাখিদের হাত।

যদি চুরি হয়ে যায় রোদ
কিংবা বোবা হয়ে যায় বোধ
আশারা জেগে থাক ঠিকঠাক
বহুপথ যেতে হবে, অপেক্ষা শুধু ভোর।

……………….. ২০।০৫।২০১৩
(অসম্পূর্ণ)

শুন্যতা

কতজন মানুষ মহাশুন্যে গিয়েছে ?
একটি তারা খসে গেলে কিংবা একটি আলো নিভে গেলে বড়জোড় নাসার একজন বিজ্ঞানী আহত হবেন।

যদি একজন পরিচিত মানুষ অনুপস্থিত থাকে,
একজন বন্ধু কিংবা ভালোবাসার মানুষ, ঘুরে ফিরে সেই শুন্য জায়গা চোখে পড়ে, মনে পড়ে।

মানুষকি শুন্যতাকে অস্বীকার করতে চায় ?
শুন্য আর শুন্যতার পার্থক্য কি মানুষ জানে ?
বৃত্তের কেন্দ্র আর পরিধির দুরত্ব কি মানুষ জানে ?
পরিধিতে দাঁড়িয়ে কি মানুষ কেন্দ্রের শুন্যতা অনুভব করে না ? কিংবা কেন্দ্রে দাঁড়িয়ে কি মানুষ পরিধিকে আঁকড়ে ধরতে চায় না ?

মহাশুন্য আর মহাশুন্যতা এক জিনিস নয়।
মানুষ কি মহাশুন্যতা অনুভব করতে পারে?

প্রশ্ন আর উত্তরের মাঝেও কিছু শুন্যতা এবং অপূর্ণতা আছে।

শুন্যতার অস্থিত্ব আছে বলেই মানুষ বেঁচে থাকে,
মানুষ বেঁচে থাকে ভরাট এবং জমাট ভালোবাসার জন্য।

……………………………।।
মানচুমাহারা, ১৫।০৫।২০১৩
লালবাগ, ঢাকা।

ইরেজার

পেন্সিলের আঁকিবুকি মোছা সহজ
কিন্তু সাথে কাগজের গায়ে যে আঁচড় লাগে তার কি হবে ?

আরো একটু কাছে গিয়ে দেখলে বোঝা যায় আহা রাবারের ঘষায় কাগজের যে ক্ষয় হয়ে গেল,
বড্ড ক্ষতি হয়ে গেল !

………………………………
মানচুমাহারা, ১৬।০৫।২০১৩, লালবাগ, ঢাকা।

মানচুমাহারার দিনকাল

ঘুম বেশি কমালে একটা সমস্যা হয়, স্মৃতি বিভ্রাট, আমার অনেক ঘুম খুব কম হয় এবং সাম্প্রতিক অনেক কিছু মনে রাখতে পারছি না, যদিও আমার গুরুত্বপূর্ণ না হলে বা আবার জেনে নেওয়ার সুযোগ থাকলে ভুলে যাওয়ার বা মনে না রাখার একটা প্রবানতা মাস্তিষ্ক নিজে বেছে নিয়েছে ! মানুষের আসলে ৮-৯ ঘন্টা ঘুম দরকার অথবা রেস্ট(অন্তত চোখ বন্ধ করে বসে থাকা বা শুয়ে থাকা)

আর একটা সমস্যা হচ্ছে মাল্টিটাস্কিং , প্রায় খেয়াল করি অফিসে যা নিয়ে সকাল কাজ শুরু করি সেটা মাঝ খানে আর সারা দিন ধরা হয় না , দিন শেষ হবার আগে রিক্যাপ করতে গিয়ে টের পাই যে টার্গেটেই ঢুকতেই পারিনি।

মাঝে মাঝে আমার পাশে বসে কেউ কিছু বললে আমি খেয়াল করি না। মাঝে মাঝে অনেক দূরের আস্তে কথা শুনে ফেলি !(সাধু সাবধান)

অচ্ছ্যুৎ

অচ্ছ্যুৎ এর দল চিরকাল সংখ্যাগুরু ছিল।

আকাশ মেঘকে ছুঁতে চায় না, মেঘ বৃষ্টিকে
সূর্যের আলো ছাড়া বাঁচা দায় কিন্তু প্রখর সূর্যকে ছোঁয়ার সাহস কেউ দেখায় না কিংবা ছুঁতে চায় না।
বৃষ্টির জন্য মানুষের সেকি প্রত্যাশা কিন্তু ঝড়কে মেনে নেয় কজনা।

অচ্ছ্যুৎ বলে ঝড়কে কেউ ঘেষতে চায় না, মেঝ দেখলেই পালিয়ে যায় !

সূর্য অচ্ছ্যুৎ,
মেঘ অচ্ছ্যুৎ,
বৃষ্টি অচ্ছ্যুৎ,
ঝড় অচ্ছ্যুৎ।

বোহেম অচ্ছ্যুৎ।

পথিক কিংবা তার পায়ে চলা পথ অচ্ছ্যুৎ।
আমি তোমাকে ছুই না, তুমি আমাকে ছোও না এবং আমরা একে অপরকে ছুই না, আমরা অচ্ছ্যুৎ।

মায়া অচ্ছ্যুৎ, ভালোবাসা অচ্ছ্যুৎ, ভুল অচ্ছ্যুৎ, শুদ্ধ অচ্ছ্যুৎ, মৃত্যু অচ্ছ্যুৎ ।

অচ্ছ্যুৎ এর দল চিরকাল সংখ্যাগুরু ছিল।
——————————–
মানচুমাহারা, ১৪।০৫।২০১৩
লালবাগ, ঢাকা, বাংলাদেশ

লাগাম

গ্রীক দেবী এথিনা ঘোড়াকে পোষ মানিয়েছিলেন।
আমি মানুষ, দেব বা দেবী নই।
মনের ঘোড়ালে লাগাম পড়ানো আমার কম্ম নয় !

আমি ঘোড়ার পিঠে চড়ব কিন্তু ঘোড়ার নিয়ন্ত্রক আমি হব না।
ঘোড়া তাঁর যেখানে ইচ্ছা আমাকে নিয়ে যাবে।

আমি লাগামহীন ঘোড়া চড়ব কিংবা ঘোড়া চড়বে আমাকে।।

……………………………
মানচুমাহারা, ২২/০৪/২০১৩