ফায়ারফক্স এডঅনঃ কাস্টমাইজ গুলল

ফায়ারফক্স ব্যবহারের সুবিধা হলো এতে অনেক এডঅন ব্যবহার করা যায় বিশেষ বিশেষ সুবিধা পাওয়ার জন্য। যে কোন সময় এডঅন ইনস্টল, সক্রিয় ও নিস্ক্রিয় করে রাখা যায়। মনে রাখবেন বেশি বেশি এডঅন ব্যবহার মানেই বেশি সুবিধা তা কিন্তু নয়। যেগুলো কাজের বা সব সময় লাগে সেই গুলো সক্রিয় রাখুন কারণ এডঅন ব্যবহারে বেশি মেমোরি নেয় ফায়ারফক্স যা অনেকের জন্য চিন্তার বিষয়।

গুগলের বিভিন্ন সার্ভিস ব্যবহার করি আমরা প্রায় প্রতিদিন। গুগলের সার্ভিসগুলো ব্যবহার করার সময় নিজের ইচ্ছা মতো কিছু কাস্টমাইজ করা যাবে এই ধরনের একটা এডঅন হলো কাস্টমাইজ গুগল বা customizegoogle.

এডঅনটির বিশেষ ফিচারগুলো নিম্নরুপঃ

  1. Use Google Suggest (suggest words while you’re typing)
  2. Add links to competitors
  3. Rewrite links to point straight to the images in Google Images
  4. Removes image copying restrictions in Google Book Search
  5. Secure Gmail and Google Calendar, switch to https
  6. Block Google Analytics cookies
  7. Hide the Gmail spam counter
  8. Make URL previews on sponsored links visible
  9. Add favicons in the web search result
  10. Remove ads
  11. Anonymize your Google userid
  12. Add a result counter in search result
  13. Filter spammy websites from search results
  14. Add links to WayBack Machine (webpage history)
  15. Remove click tracking
  16. Add links from Google to your bookmark manager
  17. Use a fixed font for Gmail mail bodies
  18. Stream Google search result pages
  19. Sticky Google Preferences

এডঅনটি ডাউনলোড করুন এখান থেকে।

Netscape Navigator 9 রিলিজ

ছবি
আজ অনেকদিন পর আবার নেটস্কেপ নেভিগেটর(ইন্টারনেট ব্রাউজার) ডাউনলোড করে ইনস্টল করে দেখলাম। সম্ভবত এটি আগে আই ই এর ইঞ্জিন ব্যবহার করতো। তবে নতুন এই ভার্সন সম্পূর্ন ফায়ারফক্স টেকনোলজির উপর ভিত্তি করে বানানো। আর এ কারনেই ফায়ারফক্স২ এর কম্পেটিবল সব এডঅন এটিতে কাজ করে। কেন এটি ব্যবহার করবেন?
একঃ ফায়ারফক্সের প্রায় সব সুবিধা এখানে পাবেন। সেই সাথে,
দুইঃ নেটস্কেপ নেভিগেটর ৯ এর কিছু বিশেষ ও ইউনিক সুবিধা এখানে পাবেন। নিচে কিছু উল্লেখ করা হলো।
যেকোন টেক্সএরিয়া রিসাইজ করাঃ

অনেক জায়গায় লিখতে গিয়ে দেখা যায় টেক্স এরিয়া বা পোস্ট লেখার জন্য দেওয়া জায়গা খুব কম। নেটস্কেপ ব্যবহার করে এই অসুবিধা দূর করা যাবে। যে কোন টেক্স এরিয়ার ডানে, নিচে ও ডাম-নিচ কর্নারে মাউস দিয়ে ড্রাগ করে টেস্ট এরিয়ার সাইজ ছোট-বড় করা যাবে।< সাইড বার মিনি ব্রাউজারঃ যে কোন লিঙ্ক রাইট ক্লিক করলে নতুন উইন্ডো, নতুন ট্যাবের পাশাপাশি সাইড বারে খোলার অপশন আসবে। সাইড বার ব্রাউজারের বাম পাশে এসে হাজির হয়। সাইড বারে মিনি ব্রাউজার হিসাবে যে কোন লিঙ্ক ব্রাউজ করা যাবে। ক্রিন স্পিটারের সাহায্যে সাইড বার ও মূল উইন্ডো ছোট বড় করা যাবে। রিস্টার্ট করাঃ অনেক সময় এডঅন ইনস্টল করলে তা কাজ করানোর জন্য বা কোন কারণে ক্রাশ করলে ফায়ারফক্স রিস্টার্ট করার অপশন আসে, নেটস্কেপ৯ এ ফাইল মেনু থেকে রিস্টার্ট করার অপশনটি নতুন যা অন্য কোন ব্রাউজারে দেখা যায় না। স্টপ ও রিলোড/রিফ্রেশ বাটন এক সাথেঃ স্টপ ও রিলোড/রিফ্রেশ বাটন এক সাথে থাকায় কিছু জায়গা কম লাগে নেভিগেশন টুল বারে। ইউ আর এল কারেকশনঃ Continue reading

pidgin বা পিজিন (multi-protocol Instant Messaging client)

pidgin বা পিজিন হল উন্মুক্ত সোর্স কোড ভিত্তিক একটি মেসেঞ্জার। এটি দিয়ে এক সাথে একাধিক তাৎক্ষনিক বার্তার নেটওয়ার্কের একাধিক একাউন্টে এক সাথে লগইন করা যায়। বিশেষ করে যারা লিনাক্স ঘরনার অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করেন তাদের কাছে এটা খুবই পরিচিত। একটা সফট্যয়ার ইনস্টল করেই এক সাথে ইয়াহু, গুগল(জিটক), এম এস এন ইত্যাদিতে চ্যাট করা যায়। পিজিন মূলত জেইম বা GAIM নামে পরিচিত। মূলত লিনাক্সের জন্য তৈরি হলেও এটার উইন্ডোজ ভার্সন পাওয়া যায়।

হয়তো ইয়াহু মেসেঞ্জারের মতো সব সুবিধা না থাকলেও পিজিন অনেক লাইট ওয়েটেড ও কম ব্যন্ড উইডে বেশ ভালো চলে। আর নিয়মিত আপডেট হয় বলে বাগগুলো কিছু দিন পর পর ফিক্স করা করা হয়। পিজিনের সাথে বেশ কিছু প্লাগইন থাকে। সেই সাথে আরো অনেক প্লাগইন পাওয়া যায় যা ইনস্টল করে নিলে আরো বিশেষ কিছু সুবিধা পাওয়া যায়। পিজিনে এখনো ভিডিও চ্যাট সাপোর্ট করে না। তবে হয়তো একদিন এই সুবিধাও চলে আসবে।

এখন পিজিনের কিছু ফিচার ও ডাউনলোড লিঙ্ক দেখিঃ

যেসকল প্রটোকল সাপোর্ট করেঃ AIM, ICQ, Jabber/XMPP, MSN Messenger, Yahoo!, Bonjour, Gadu-Gadu, IRC, Novell GroupWise Messenger, QQ, Lotus Sametime, SILC, SIMPLE, MySpaceIM, and Zephyr.

প্লাট ফর্মঃ Windows, Linux, BSD, and other Unixes. OS X এর জন্য পিজিনের মতো একটা মেসেঞ্জার আছে নাম। Adium.

ডেভেলপার সাইটঃ developer.pidgin.im

ডাউনলোড করুনঃ

উইন্ডোজ ভার্সন

ফেডোরা ৪,৫,৬ এর জন্য এই ফাইলটা ডাউনলোড করুন। এরপর /etc/yum.repos.d/ ডিরেক্টরিতে সেইভ করুন। এরপর টার্মিনাল থেকে “yum install pidgin” এই কমান্ডটি দিন।ফেডোরা ৭ এর জন্য এখনো বাইনারি ফাইল আসে নাই।

আর তাছাড়া আপনি সোর্স কোড থেকেও কম্পাইল করে নিতে পারেন সহজে।

রেড হ্যাটের জন্য এই লিঙ্ক অনুসরণ করুন।

পিজিন প্লাগইন প্যাকঃ এই লিংক থেকে পিজিনের জন্য অসংখ্য প্লাগইন পাবেন যা ইনস্টল করলে কিছু বিশেষ সুবিধা পাওয়া যায়। এখান থেকে ডাউনলোড করে নিন আপনার পছন্দের অপারেটিং সিস্টেমের জন্য প্লাগইন।

পিজিন সম্পর্কিত সব নতুন তথ্য জানার জন্য এখানে দেখুন। আর পিজিনের লিড ডেভেলপার Sean Egan এর ব্লগ দেখুন এখান থেকে

পিজিনের স্মাইলিগুলো পছন্দ না হলে এখান থেকে ইয়াহু ও এমএসএন এর স্মাইলি প্যাক ডাউনলোড করে নিতে পারেন…

ইয়াহু আইডি দিয়ে চ্যাট করে ইয়াহু স্মাইলি আসবে আর এমএসএন আইডিতে এমএসএন স্মাইলি।

স্মাইলি প্যাকটি ইন্সটল করার জন্য পিজিনের Tools>>Preference মেনুতে গিয়ে Smiley Themes ট্যাবে ডাউনলোডকৃত 59794-Original.tar.gz ফাইলটি ড্র্যাগ-ড্রপ করুন*

(*এটি লিনাক্স এবং উইন্ডোজ উভয় ঘরানার অপারেটিং সিস্টেমেই কাজ করে)

কিভাবে জেইম বা পিজিনে ইয়াহু ও গুগল টক ব্যবহার করবেন তা নিচে দেওয়া হলোঃ

For Yahoo:

============

Protocol :yahoo

Screen Name:user name without “@yahoo.com”

Password :yahoo maill account password

Local Alias: Ur name or nick

Yahoo Options

1.Uncheck Yahoo Japan if u r a bd ppl

2.

Keep unchanged except (if u r from bd)

Japan page server:cs.yahoo.co.sg

Japan file transfer server:filetransfer.msg.yahoo.co.sg

3.

Proxy

as given by ISP

For Gmail:

=========

protocol:Jabbar/XMMP

[Note: Jabbar in gaim(old version of pidgin) and xmmp in pidgin]

Screen Name:Username without “@gmail.com”

Server:gmail.com

Resource:Gaim

Password:Gmail accout password

Jabbar Options:

[0]Force Ols SSL

[0]Allow Plaintext Auth over unencrypted streams

Port:5223/2222/443

[Note:

Check which one works in ur net connect.

U can use this command to test: telnet talk.google.com portnumber

replace port number by 2222 or 2223 or 443

]

Connect server:talk.google.com

PRoxy as given by ur isp

ছোট ছোট ঈশ্বরের ঈশ্বর

ছোট ছোট ঈশ্বরের ঈশ্বর

হে ঈশ্বর তুমি আমাদের পাঠালে
আমরা তোমাকে ছোট ছোট খন্ড করলাম !
আমরা তোমার শাখাপ্রশাখার
ভেতর আরও ছোট ছোট ঈশ্বর তৈরি করলাম।
এখন তোমার অনেক নাম ,আমাদের দেওয়া নাম
তোমার নামে আমরা ব্যবসা করি,
তোমাকে প্রতিদিন বিক্রি করি এবং
তোমার নামে ছদ্দবেশে জিকির করি।

হে প্রভু ,আমি অনুতপ্ত এবং
আমি এই ছোট ছোট ঈশ্বরদের দলে মিশে আছি।

হে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ঈশ্বর
তোমারা এক হও,
হে ঈশ্বরদের ঈশ্বর তুমি জেগে ওঠো।

মানচুমাহারা
28.03.06 ,Tuesday

স্থির অস্থির গাংচিল

স্থির অস্থির গাংচিল

=======================

সময়ের দীর্ঘপথে আমি স্থির পথিক
আমার দুরন্ত মন ছোট্ট একটা সময়ের বন্ধী।
উলঙ্গ আমি ভবঘুড়ে সারাদিন-প্রতিদিন
ছুটে চলি একই পথে-একই বৃত্তের পরিধিতে।।
স্বপ্ন ছবি মনের রঙে রঙ্গীন করি -আমি এক স্বপ্ন পথিক।
ছায়াঘুমে জড়িয়ে পড়ে বহেম-আমি ছায়া পথ-
ধরে হেঁটে যাই-ছায়া পথিক।।

রংধনুর মায়ায় থেমে যায় আমার অস্থির পথ চলা
ঝোলার ঈশ্বর বাক্স-বন্ধী,আদরের হাসি উদ্বায়ী-
একটু একটু করে ব্যাসার্ধ বাড়ে আমার বৃত্তের ।।

ছোট ছোট নুড়ি করে ধুলার মন চুরি
উড়ে যায় ধোয়াটে আকাশে
হাড়-কাপুনি শীত নগ্ন বাতাসে।।

রুপসী সাদা-বক লুকায় হাসি-সারা গায়ে
মেখে মায়াজাল,
চিকচিকে আলো পিঠে নিয়ে স্তব্ধ মহাকাল।।

স্থির সময়,স্থির পথিক,স্তির গাংচিল ডানা মেলে
স্থির অস্থির বাতাসে।।

…………………………………………

06.11.06
মানচুমাহারা

ব্লগং কে আমি কিভাবে/যেভাবে দেখি


এখন অনেক রাত, না ঠিক অনেক রাত নয়, রাত জেগে ভোর এসে হাজির প্রায়। জানালা দিয়ে হালকা কুয়াশা গায়ে ভোর এসে উঁকি দিচ্ছে। হঠাৎ ইচ্ছা হলো ব্লগিং নিয়ে কিছু লিখি। বাংলায় ব্লগিং খুব বেশি দিন শুরু হয়নি। বলা যায় ইউনিকোড চালু হবার পরই বাংলায় ব্লগ লেখা শুরু করেছে অনেকেই। এর আগে ইংলশ ছাড়া উপায় ছিলো না।
আমি প্রথম ব্লগ শব্দটার পরিচিত হই ইয়াহু৩৬০ ব্লগের মাধ্যমে, আমার রুমের প্রাক্তন বড় ভাই দেখিয়েছিলেন এটা। এর পর ব্লগ স্পট, ওয়ার্ড প্রেস ইত্যাদির সাথে সাক্ষাৎ হয়। একদিন প্রথম আলোতে দেখলাম সামহোয়ারের কথা। আগ্রহ একটা নিক খুললাম(সামহোয়ারে আমার এখনকার নিক মানচুমাহারা, আগে অন্য নিক ছিলো)। প্রথমে বুঝতাম না ব্লগে কি লিখে, কি লিখবো, বা কি লেখা উচিৎ। একটা দুইটা লাইন ছড়া মতো লিখে পোস্ট দিই। বেশ মজা, অনেকেই কমেন্ট করে। মাঝে মাঝে কেউ বকুনি দেয় যে চেস্টা করতে কিছু ভালো লেখার জন্য, হাবিজাবি লিখে হোম পেজে জায়গা দখল না করতে। আমি চেস্টা করতাম এরপর আমার সাধ্যমত ভালো লেখার। উল্লেখ্য আমি ভালো লেখক নই। যান্ত্রিকতায় যখন অস্থির হয়ে যাই তখনই পেট থেকে(মাথা নয়, আমি পেটই বলবো) কিছু মিছু লেখা বের হয়, তা খুবই সাধারন।
Continue reading

Probhat web based layout

Today I am releasing the web based  script  of  probhat(প্রভাত) keyboard। Probhat is a bengali unicode based keyboard layout designed by Ankur inspired from Rupali layout. This java script can be used in any blog,forum easily to write bangla in unicode without any external software. It’s under LGPL license and any one can use it following LGPL’s rules. I have released it on behalf of amaderprojukti forum(আমাদের প্রযুক্তি ফোরাম).To download the file please visit amaderprojukti forum .

To test the script see these two inks:link1,link2.

Thank,

manchumahara

খন্ডিত সত্ত্বা

আমি প্রতিনিয়ত খন্ডিত হই,
খন্ডিত অংশ গুলো আবার খন্ডিত হয়,তারাও আবার খন্ডিত হয় ।
প্রতিটি খন্ড আমার সত্ত্বাকে বয়ে নিয়ে যায়
ওরা আমার চিন্তা বহন করে,আমার ভাবনা গুলোকে ধারন করে
প্রতিটি খন্ড আমার না মেলানো প্রশ্ন নিয়ে তোমাদের দুয়ারে যায়,
কিছু কিছু আমি আমার কাছে ফিরে আসে !
আমি আমার চিন্তা গুলোকে ফিরে পাই,
ওরা আমাকে আশাবাদী করে তুলে,
আমার আত্মবিশ্বাস দৃঢ় হয়,
কিন্তু কিছু কিছু কালের গর্ভে হারিয়ে যায়!
অনন্ত অসীমের তৃষ্ণায় ওরা ছুটে বেড়ায়,
না পাওয়া প্রশ্নোত্তরের আশায় ওরা ভবঘুরে,
ওরা ভবঘুরে ঈশ্বরের পেছনে ঘুরে বেড়ায়,
আমার ভাবনা চুরি করে ওরা ফেরি করে !!
আমি ওদের আমার ভাবনা গুলোকে ফিরিয়ে দিতে বলি,
ওরা দেয় না,
ওরা ফিরে আসে না,
ওদের ধরতেই ছুটে চলেছে মানচুমাহারা।
…………………………………………………
মানচুমাহারা
১,৮,২০০৬

ডান-বাম

মাঝে মাঝে গতির মাঝে খুঁজে পাই অসাড়তা
প্রচন্ড জ্যামের ভেতর আটকে থাকি ঘন্টার পর ঘন্টা
সিগন্যাল ছেড়ে দেয়,
পাগলের মতো গাড়ি গুলো চলতে শুরু করে…
আমি ঠাঁয় দাঁড়িয়ে থাকি পথের মাঝে।।

আমার পাশ কাটিয়ে চলে যায় গোমড়া মুখো বাস গুলো।
সিটি বাজিয়ে আমাকে সরে যেতে বলে রিক্সার দল।।
আমি ঠাঁয় দাঁড়িয়ে থাকি পথের মাঝে।।

আমি এই ছুটে চলা সময়ের স্থির চিত্র সংগ্রহ করি।।

মাঝে মাঝে স্থবির মন মেতে ওঠে চঞ্চলতায়
এক নিমিষে ছুঁয়ে দিই সব ঘুম চোখ
আমার আকন্ঠ চিৎকারে ব্জ্রপাত হয় মেঘে মেঘে,বৃষ্টি…
ভিজিয়ে দেয় ঘুমন্ত রাজপথ আর যত আঁধফোটা ফুল।।

আমি এই বৃষ্টিতে স্নাত হই আর ভিজে যায় আমার চিৎকার।।

আমি এই স্থির সময়ের গতি চিত্র সংগ্রহ করি

………………………………………
মানচুমাহারা

২৪.০৩.২০০৭